আপওয়ার্ক যে ভাবে কাজ করলে আপনি অবশ্যই সফল হবেন। পর্ব- ১

আপওয়ার্ক যে ভাবে কাজ করলে আপনি অবশ্যই সফল হবেন। পর্ব- ১

যদিও ফ্রিল্যান্সিং এ বেশ কিছু ওয়েবসাইট আছে কিন্তু আপওয়ার্ক ই সব থেকে জনপ্রিয় এবং বিশ্বাসযোগ্য একটি ওয়েবসাইট।অনেকে অনেক সফল আবার অনেকে অনেক হতাশ। যারা হতাশ তাদের বেশিরভাগ ই বলে কাজ পারি কিন্তু কাজ পাই না। তাদের জন্য আমার ধারাবাহিক এই আর্টিকেল। আশা করি কিছুটা হলে ও কাজে লাগবে।

কেন আপওয়ার্ক এর মতো জব পোস্টিং সাইট সেরা

১. আপনি পৃথিবীর যে কোন জায়গার কাজ আনতে পারবেন।এখানে লোকেশন কোন সমস্যা নেই। আপনি আপনার ঘর এ বসে পৃথিবীর যে কোন জায়গার কাজ করতে পারবেন

২. এখানে আপনাকে মার্কেটিং করে একদম ই সময় নষ্ট করার প্রয়োজন নাই। অনেক ওয়েবসাইট আছে সেখানে মার্কেটিং না করলে আপনার কাজ পাওয়ার সম্ভবনা কমে যাবে। আপওয়ার্ক এ বায়ার জব পোস্ট করবে আপনি অ্যাপ্লাই করবেন। বায়ার এর ভাল লাগলে সে আপনাকে হায়ার করবে, শুরু করে দিবেন কাজ।

কেন আপওয়ার্ক

অডেস্ক এবং ইল্যান্স এক সাথে হয়ে আপওয়ার্ক হয়েছে এবং এর মাধ্যমে ফ্রীলাঞ্চেররা সব থেকে বেশি টাকা ইনকাম করছে অন্যান্য মার্কেটপ্লেস এর থেকে ও বেশি জার গ্রোস ইনকাম ৯২০ মিলিয়ন ডলার।

কাদের জন্য আপওয়ার্ক

১. যারা একটু তাড়াতাড়ি ক্যারিয়ার গড়তে চান কিন্তু  প্রথম বায়ার পেতে যুদ্ধ করতে হচ্ছে।

২. যারা তাদের প্রোডাক্ট বিক্রি করতে অথবা দাম নিয়ে আলোচনা করতে পারেন না

৩. যারা পৃথিবীর যে কোন জায়গার কাজ করতে চান

প্রস্তুতি গ্রহন করুন

আপওয়ার্ক এ প্রস্তুতি খুব সহজ ব্যাপার কিন্তু না। এই জায়গায় এ বেশির ভাগ মানুষ ভুল করে। অনেকে তো মনে করে যেদিন একাউন্ট ওপেন করবে সেদিন থেকে ই কাজ পাওয়া যাবে। আপওয়ার্ক এ একাউন্ট করার পর আপনার প্রথম কাজ ই হবে আপনার প্রোফাইল রেডি করা। আপওয়ার্ক আপনার কাছে যা চাইবে সেগুলি দিয়ে ফর্মগুলি পুরন করুন, চেস্টা করবেন বিস্তারিত ভাবে তথ্যগুলি দিতে। অনেকে বলে বায়ার কি আর এতো কিছু চেক করে, আর এখানে ই ভুলটা হয়।প্রথমে এতো কিছু চেক যদি নাও করে বায়ার যখন ঠিক করে আপনাকে নেয়া যায় তখন সে আপনার প্রোফাইল খুব ভাল করে চেক করবে।আপনার প্রোফাইল যখন ১০০% কমপ্লিট হবে তখন আপনি কাজের দিকে এক ধাপ সামনে গেলেন।

আপনার প্রোফাইল এর গুরুত্ব বাড়ান

নিজের প্রোফাইল এর গুরুত্ত বাড়ানোর প্রধান উপায় হচ্ছে স্কিল টেস্ট দেয়া। বিশ্বাস করেন এই স্কিল টেস্ট এ ভাল ফলাফল করা খুব সহজ কিছু না, তাই বায়ার যখন দেখবে আপনি স্কিল টেস্ট দিয়েছেন এবং ভাল করেছেন তখন আপনার প্রোফাইল এর গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাবে। অবশ্যই মনে রাখবেন আপনি যে সার্ভিস দিবেন সেই সার্ভিস সম্পর্কিত স্কিল টেস্ট দিবেন। আপনি কাজ করছেন গ্রাফিক ডিজাইন এ আর স্কিল টেস্ট দিলেন ওয়েব ডিজাইন এর কোন বিষয় এর উপর তাহলে কিন্তু ব্যাপারটা হাস্যকর হয়ে যাবে। যারা গ্রাফিক ডিজাইন করে তাদের অনেকের প্রোফাইল এ দেখা যায় মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর টেস্ট দেয়া থাকে, আমার মনে হয় এগুলি দরকার নেই।

অবশ্যই আপনাকে দক্ষ হতে হবে

অনেকেই বলে অনেক দিন ধরে কাজ করি, কাজ পাই না, এইভাবে হতাশ হয়ে যায় আর নতুন যারা আসতে চায় তাদের হতাশ করে। যারা হতাশ হন তাদের হতাশ হউয়ার একটা কারন হচ্ছে কাজের মান। খুব সোজা কথা আপনার কাজের মান যদি ভাল না হয় আপনি কাজ পাবেন না। তাই ফ্রীলাঞ্চিং করতে হলে আপনাকে কোন না কোন বিষয় এ দক্ষ হতে হবে। প্রশিক্ষন কেন্দ্র থেকে কোর্স করে নিতে পারেন, অথবা ইউটিউব থেকে বিভিন্ন টিউটোরিয়াল দেখে ও কাজ এর উপর দক্ষতা আনা যেতে পারে।

আপনার আপওয়ার্ক এ কাজের মূল্য ঠিক করুন

একদম প্রথমে আপনি যতটা পারেন কম টাকায় কাজ করুন, অন্তত কয়েকটা কাজ, আপনার লোকাল মার্কেট এ যতই অভিজ্ঞ হন অথবা আপনার প্রোফাইল যতই উন্নত হোক। আপনি যদি বেহসি টাকা দেমান করেন কিন্তু আপনি আপওয়ার্ক এ একটা কাজ ও করেন নাই তাহলে বিড করে কাজ পাওয়াটা খুব কঠিন হয়ে যেতে পারে।আপনি যখন ২-৩টা কাজ সফল ভাবে শেষ করবেন তখন আপনি আপনার কাজের মূল্য বারাতে পারবেন।

এখন আপনি চেস্টা করুন কাজ পাওয়ার জন্য

আপওয়ার্ক এর সার্চ বক্স এ চলে যান এবং আপনি যে ধরনের কাজ করতে চান সেটা লিখে সার্চ দেন। সার্চ বক্স এর পাশে ফিল্টার আছে সেখান থেকে আপনি আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী কাজ নিরবাচন করতে পারবেন। এবং প্রথমে আপনি কাজটা করে কত টাকা পাচ্ছেন সেটা একদম ই চিন্তা না করে আপনি বায়ার এর কাছ থেকে কিছু ভাল রিভিউ নেয়ার চেষ্টা করুন যেটা প্রথমে টাকার থেকে ও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।এবং সে জন্য ঘন্টা বেসিস কাজগুলি না করে ফিক্সড প্রাইস এর কাজগুলি করলে আপনার জন্য ভাল হবে।

সে সব কাজের জন্য ই অ্যাপ্লাই করবেন যে কাজ আপনি পারবেন এবং আপনি পুরাপুরি আত্মবিশ্বাসী যে আপনি পারবেন। দেখি অ্যাপ্লাই করে কোন রেস্পন্স পাওয়া যায় কিনা এরকম চিন্তা করে জব এ অ্যাপ্লাই করলে বিপদে ও পরতে পারেন। আগে আপনি প্রতি সপ্তাহে ২০ টা করে জব এর জন্য অ্যাপ্লাই করতে পারতেন এখন কিন্তু সেই সুযোগ নেই। এখন আপনি মাস এ ৩০টা জব এর জন্য অ্যাপ্লাই করতে পারবেন। তাই আপনি যে কাজে আত্মবিশ্বাসী শুধু সেই কাজের জন্য অ্যাপ্লাই করেন।

প্রথম জব পাওয়াটাই একটু কঠিন, আপনি নিজেকে দিয়ে ই চিন্তা করেন। আপনি যদি নিজের জন্য কোন কাজ করান আপনি ও কিন্তু চাইবেন কোন অভিজ্ঞ কাউকে দিয়ে কাজটা করাতে। তাই একটু ধৈর্য ধরুন, শুধু প্রথম কাজটি পাওয়ার অপেক্ষা।

আপওয়ার্ক এ কাজের ধরন বুঝে নিন

Fixed Price – Fixed Price এর কাজগুলি এরকম যে আপনার বায়ার হয়ত আপনাকে বলবে তুমি আমাকে একটা লোগো তৈরি করে দিবে তমাকে এতো ডলার দেয়া হবে। প্রথমে এই ধরন এর জবগুলি করলে ভাল হয় কারন এখানে আপনি আপনার নিজের মতো টাইম নিয়ে কাজ করতে পারবেন, যদি ও বায়ার এর ও একটা টাইম লিমিট থাকবে তারপরও আপনি বায়ার এর সাথে কথা বলে টাইম বাড়িয়ে নিতে পারবেন।কিছু কিছু ক্ষেত্রে অনেক সুবিধা যেমন আপনি ৩ ঘন্টায় একটা কাজ শেষ করে ধরুন ৫০ ডলার ইনকাম করে ফেললেন।কিন্তু ঘণ্টায় কাজ করলে আপনি কি প্রতি ঘণ্টায় ২৫ ডলার নিতে পারবেন? আবার অসুবিধা হল আপনার বায়ার আপনাকে একটা নিয়ে অনেক দিন ঘুরাতে ও পারে, এইটা ঠিক করতে হবে, ওইটা ঠিক মতো হয় নাই এরকম।

Hourly rate- Hourly এর জন্য আপওয়ার্ক এ একটা এপ্স আছে যেটা আপনার কম্পিউটার এ ইন্সটল করে নিতে হবে, এপ্স ওপেন করে আপনাকে কাজ করতে হবে এবং এপ্সটি ৫-১০ মিনিট পরপর আপনার কম্পিউটার স্ক্রীন এর ছবি তুলবে। বেশির ভাগ বায়ার এগুলি চেক করে না তবুও অনেকে আছে যারা হয়ত চেক করবে, সে জন্য এরকম একটা বাবস্থা আছে। ঘণ্টায় কাজ করলে সেই টাকা আপনি পাবেন, আপওয়ার্ক এই ব্যাপার এ গ্যারান্টি দিয়ে থাকে, অন্য দিকে ফিক্সড প্রাইস এর কাজে বায়ার ইচ্ছা করলে আপনার কাজ বাতিল করে দিতে পারে, হয়তো আপনার কাজ তার পছন্দ হল না সে কাজটা বাতিল করতে পারবে। ঘণ্টায় কাজ করলে আপনি যদি পুরা কাজটি কমপ্লিট না ও করেন আপনি জত ঘন্টা কাজ করবেন তত ঘন্টার টাকা আপনি পাবেন কিত্নু বায়ার এর কাজ ঠিক মতো কমপ্লিট করতে না পারলে আপনি ভাল রিভিউ পাবেন না আর ভাল রিভিউ আপনার জন্য অনেক বেশি দরকার।

আরিফুল ইসলাম

 

আমার নাম আরিফুল। গ্রাফিক ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কাজ করি। লিখতে অনেক ভালোবাসি। মুলত আইটি বিষয়ক বিভিন্ন লেখা লিখি থাকি।আমি এই ব্লগের এডমিন। আশা করি আপনাদের ভালো কিছু আর্টিকেল দিতে পারবো যা পড়ে আপনারা উপকৃত হবেন। এটার সাথে আমি ই ক্যাব এবং জেনেসিস ব্লগে ও লিখে থাকি।

2 Comments

  1. ভাই একাউন্ট এপ্রুভ করতেছেনা। কিভাবে এপ্রুভ করাব এই বিষয়ে একটু টিপস দেন।

  2. আসসালামু আলাইকুম
    ভাই, আপওয়ার্কে আমার প্রোফাইল ১০০%। এ পর্যন্ত কোন কাজ পাইনি। তিনটা স্কিল টেস্ট দিয়ে ১ টাতে পাস করতে পেরেছি। কিন্তু গতকাল থেকে আমার প্রোফাইল ভিজিবিলিটি ‘private locked’ হয়ে আছে।
    মেম্বারশীপ আপগ্রেড করার নোটিফিকেশন আসছে।
    এখন কী করণীয় আমার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *