আপওয়ার্কে কাভার লেটার কিভাবে লিখবেন

আপওয়ার্কে কাভার লেটার কিভাবে লিখবেন

যত ছোট হয় ততই ভালো

যত ছোট হয় তত ভালো, কত ছোট?  যদি সেটা একটা রচনার মতো হয় তাহলে তার প্রায় পুরোটুকু ই ভাগ বাদ দিয়ে দেন। শুরুটা খুব ভালো হতে হবে, এরপর আপনার কাজের উপর ছোট একটা বিবরন। আর দুই একটা লাইন দিতে পারেন যেগুলি আপনি আপনার প্রোফাইল এ দেন নাই হতে পারে আপনার বিগত দুইটা প্রোজেক্ট এর কথা যেটা সেই জব এর সাথে অনেকটা মিলে যায়।

বায়ার কি চাচ্ছে সেটা বুঝে তারপর লিখুন

আপ ওয়ার্ক এ জব ডেসক্রিপশন এ যদি কোন প্রশ্ন করা হয় তাহলে একদম সেটার ই উত্তর দিবেন। খুব ভাল করে বানান এর দিকে লক্ষ্য রাখাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। লিখা হয়ে গেলে অবশ্যই বানান চেক করতে ভুলবেন না আর বানান ভুল হলে সেগুলি ঠিক করে নিবেন। একবার সেটা পরবেন পুরাটা সম্ভব হলে জোরে জোরে, যদি মনে হয় ভুল হচ্ছে সম্ভব হলে কাউকে দিয়ে চেক করে নিলে ভাল হয়।

আপনি প্রফেশনাল কাজ করছেন সেটা জানান

আপনি অনেক দিন ধরে চেষ্টা করছেন কাজ পাচ্ছেন না কিন্তু আপনি খুব অভিজ্ঞ এগুলি লিখার একদম দরকার নাই। আপনি খুব ভদ্র ভাবে সুন্দর করে পোস্ট বায়ার যা যা জানতে চায় সেটা লিখুন। কিভাবে কাজ করলে ভাল হবে, আপনার কাজের ধরন কেমন হবে সেটা ও লিখতে পারেন তাহলে বায়ার আরো আত্মবিশ্বাসী হবে। তবে কখনই প্রকাশ করবেন না যে কাজটা না হলে ই না।

কিছু কমন শব্দ বাদ দিতে হবে

আপওয়ার্কে কাভার লেটার এ টেকনিক্যাল শব্দ ব্যবহার বেশি ব্যবহার করলে ভালো হয়। কোন সফটওয়্যার নিয়ে কাজ করবেন অথবা কাজ করতে চান। কোন টুলসগুলি ব্যবহার করলে আরও বেশি ভাল হবে ইত্যাদি লিখুন।   “proven potential”  “deliver maximal results” “customer satisfaction” এই ধরনের শব্দ অনেকেই ব্যবহার করে তাই এগুলি দেখলে বায়ার মনে করতে পারে আপনি কপি করেছেন টাই এরকম শব্দ লিখে কাজ পাওয়া কতটা সহজ বলতে পারবো না।তাই বলবো এই ধরনের শব্দগুলি বাদ দিয়ে লিখুন।

কাজের লিঙ্ক দিলে অনেক ভালো

ধরেন আপনি বিজনেস কার্ড এর জন্য অ্যাপ্লাই করছেন তাহলে সেখানে আপনার ডিজাইন করা বিজনেস কার্ড এর লিঙ্ক দিতে পারেন অর্থাৎ যদি কোন পোর্টফলিও সাইট করেন তাহলে  সাইট এর লিঙ্ক দিয়ে দেন। মনে রাখবেন যে কাজের জন্য কাভার লেটার লিখছেন সেই কাজ ই যেন থাকে । আপনি লিখছেন বিজনেস কার্ড এর কাভার লেটার আর লিঙ্ক দিলেন যেখানে বিজনেস কার্ড আছে ২টা আর বাকিগুলি সব অন্য কাজ। এরকম করা উচিত হবে না।পোর্টফলিও তে আলাদা আলাদা ভাবে প্রোজেক্ট রাখা গেলে ভালো হবে সেটা না করা গেলে গ্রাফিক এর কাজ এর জন্য আলাদা পোর্টফলিও ওয়েব ডিজাইন এর জন্য আলাদা।

কাভার লেটার পড়ে বুঝা যেতে হবে বিষয় কি

কিছু কিছু  কাভার লেটার আছে পড়লে বুঝার কোন উপায় নাই যে কোন জব এর জন্য লিখা হয়েছে  কাভার লেটার। ইন্টারনেট এ যেগুলি পাওয়া যায় সেখান হুবুহু থেকে কপি করলে যা হয় আর কি। তাই বলছি কপি না করে আপনি যা পারেন তাই ই লিখেন। যতটুকু বুঝেছেন তততুকু ই লিখেন। কিন্তু যে জব এর কথা বলা হয়েছে সেটা নিয়ে লিখেন।  আপনি কতদিনের অভিজ্ঞ এটা জানার থেকে ও বায়ার এর এটা জানা জরুরি যে আপনি তার কাজটা কিভাবে করবেন।

কোন উদাহারন হয় না কাভার লেটার এর

ওদিন দেখলাম একজন বলছে একটা উদাহারন দিতে সেখান থেকে সে দেখে দেখে লিখবে। কাভার লেটার এর কোন উদাহারন হয় না। ইন্টারনেট এ যে ডেমো কাভার লেটার পাওয়া যায় সেটা কপি করার জন্য না দেয়া হয় নাই, ধরনটা বুঝার জন্য হয়তো দেয়া হয়েছে। আপনি যত ই এডিট করেন সেই কাভার লেটারগুলি কপি ই থেকে যাবে আর বায়ার একটু দেখে ই  বুঝে যাবে আপনার কাভার লেটার কপি করা। আর যে মানুষটা কাজ করতে এসেছে সে যদি নিজে থেকে কাভার লেটার লিখতে না পারে তাহলে সে অন্য কাজ কিভাবে করবে? এরকম ই হয়তো কিছু মনে করবে বায়ার। তাই যা পারেন নিজে থেকে লিখেন। যদি পারেন যারা কাজ করছে, কাজ পাচ্ছে তাদের দুই একটা কাভার লেটার দেখে ধারনা নিতে পারেন তবে সেগুলি আবার কপি করতে যাবেন না।

 

আমি মনে করি এই ব্যাপারগুলি চিন্তা করে যদি  লিখেন তাহলে আপনি বায়ারদের কাছ থেকে সাড়া পাবেন। অনেকে পাচ্ছে। আর শুধু কাভার লেটার লেটার না আপনার প্রোফাইল সুন্দর করে সাজান। যদি সম্ভব হয় একটা পোর্টফলিও সাইট বানিয়ে ফেলেন। আর নিজের উপর আত্তবিশ্বাস রাখতে হবে।তাহলে ই সফল হতে পারবেন আশা করি।

ধন্যবাদ

আরিফুল ইসলাম

আমার নাম আরিফুল। গ্রাফিক ডিজাইন, ডিজিটাল মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কাজ করি। লিখতে অনেক ভালোবাসি। মুলত আইটি বিষয়ক বিভিন্ন লেখা লিখি থাকি।আমি এই ব্লগের এডমিন। আশা করি আপনাদের ভালো কিছু আর্টিকেল দিতে পারবো যা পড়ে আপনারা উপকৃত হবেন। এটার সাথে আমি ই ক্যাব এবং জেনেসিস ব্লগে ও লিখে থাকি।

1 Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *